সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০১:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
‘বাবাকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে হত্যা করেছি’ বিলের পানিতে ভাসছে কাউন্সিলরের মরদেহ ইজিবাইক চালককে হত্যার দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি জমা দিল কোটা আন্দোলনকারীরা একইদিনে বাংলাদেশে মুক্তি ‘পদাতিক’ ট্রাম্পের হামলাকারী কে এই যুবক? প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন, মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে? কারাগার ভেঙে পালানোর চেষ্টাকালে বন্দুকযুদ্ধ ,নিহত ৮ জঙ্গিবাদ থামিয়েছি, এখন দুর্নীতিবাজদের ধরছি জানিয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী দেশের যেকোন দুর্যোগ মূহুর্তে র‌্যাব সবসময় বন্ধু হয়ে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে কুড়িগ্রামে জানিয়েছে র‌্যাব মহাপরিচালক

মেসের খাবারে মৃত সাপ, হাসপাতালে ভর্তি ১০ শিক্ষার্থী

রিপোর্টারের নাম / ৮৪ টাইম ভিউ
Update : সোমবার, ১৭ জুন, ২০২৪

মেসের খাবারে মৃত সাপ পাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ওই খাবার খেয়ে কলেজের ১০ জন শিক্ষার্থী হাসপাতালেও ভর্তি হয়েছে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে হোস্টেলের শিক্ষার্থীরা। ভারতের বিহারের বাঙ্কা জেলার সরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্রদের অভিযোগ, এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় কলেজের এক কর্মী তাদের হুমকি দিয়েছেন।

সোমবার (১৭ জুন) এক প্রতিবেদনে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেসের খাবারে মৃত সাপ পাওয়ার পর বিহারের একটি সরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ১০জন ছাত্রকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়।-খবর তোলপাড় ।

ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) রাতে শিক্ষার্থীরা খাবারে বিষক্রিয়ার অভিযোগ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তবে সবাই এখন সুস্থ। কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র সানি মাহতো বলেন, আমরা মেসের খাবার (গুণমান) নিয়ে সমস্যার মুখোমুখি হয়েছি। কিন্তু এবার তা সীমা অতিক্রম করেছে। খাবারে একটি সাপ পাওয়া গেছে। কেউ এটা সহ্য করতে পারে না। যতবার আমরা শিক্ষকদের কাছে বিষয়টি জানিয়েছি, তারা বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেছে। মেসটি একটি বেসরকারি ঠিকাদার পরিচালনা করে বলে জানা গেছে।

তবে খাবারের মানের সমস্যাটি মেয়েদের মেসেও রয়েছে বলে অভিযোগ করেন আয়ুশি নামের এক ছাত্রী। তিনি বলেন, এসডিএম স্যার অনেকদিন আগে পরিদর্শনের জন্য এসেছিলেন। সেসময় ৯০ শতাংশ মেয়াদউত্তীর্ণ খাবার পান তিনি। হোস্টেলে থাকতে হলে মেসের খাবার খেতে হবে এমন নিয়ম আছে। কেউ খাবার না খেলে কিংবা মেসের চার্জ না দিলে তাদের পরীক্ষায় বসতে দেয়া হয় না।

এ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আনশুল কুমারকে উদ্ধৃত করে লাইভ হিন্দুস্তান বলেছে, কলেজে এর আগেও খাবার সংক্রান্ত অভিযোগ জানানো হয়েছিল। প্রশাসন এটি তদন্ত করেছে এবং কলেজকে একটি নির্দেশ জারি করেছে। এ ধরণের ঘটনা যদি আবার ঘটে তাহলে এর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
এদিকে, বাঙ্কা জেলার সাব ডিভিশনাল অফিসার (এসডিও) অবিনাশ কুমার এবং ডেপুটি সুপারিনটেনডেন্ট অফ পুলিশ (ডিএসপি) বিনোদ কুমার শুক্রবার সন্ধ্যায় কলেজ পরিদর্শন করেন এবং শিক্ষার্থীদের শান্তি বজায় রাখার অনুরোধ করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর