সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০১:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
‘বাবাকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে হত্যা করেছি’ বিলের পানিতে ভাসছে কাউন্সিলরের মরদেহ ইজিবাইক চালককে হত্যার দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি জমা দিল কোটা আন্দোলনকারীরা একইদিনে বাংলাদেশে মুক্তি ‘পদাতিক’ ট্রাম্পের হামলাকারী কে এই যুবক? প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন, মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে? কারাগার ভেঙে পালানোর চেষ্টাকালে বন্দুকযুদ্ধ ,নিহত ৮ জঙ্গিবাদ থামিয়েছি, এখন দুর্নীতিবাজদের ধরছি জানিয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী দেশের যেকোন দুর্যোগ মূহুর্তে র‌্যাব সবসময় বন্ধু হয়ে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে কুড়িগ্রামে জানিয়েছে র‌্যাব মহাপরিচালক

সাদিক অ্যাগ্রো খামারের জায়গায় হবে বিনোদন পার্ক

রিপোর্টারের নাম / ৫০ টাইম ভিউ
Update : সোমবার, ১ জুলাই, ২০২৪

খাল উদ্ধারের অংশ হিসেবে ঢাকার মোহাম্মদপুরের আলোচিত সাদিক অ্যাগ্রো খামারের পুরোটাই গুঁড়িয়ে দিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি)। পরে খাল খননও শুরু করে ডিএনসিসি। আগামীতে নতুন করে যাতে কেউ খাল ভরাট করতে না পারে, সেজন্য খালের একাংশে শিশুদের জন্য খেলার জায়গা তৈরি করে দেওয়ার পরিকল্পনাও করছে তারা।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) মোহাম্মদপুরের রামচন্দ্রপুর খাল উদ্ধারের কাজ শুরু হয়। পরে শুক্র ও শনিবারও চলে (২৮ ও ২৯ জুন) এই অভিযান।-খবর তোলপাড় ।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন ডিএনসিসির অঞ্চল-৫-এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোতাকাব্বীর আহমেদ এবং ডিএনসিসির সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুব হাসান।

খাল উদ্ধারের উচ্ছেদ অভিযানকে স্বাগত জানিয়ে স্থানীয়রা বলেন, খালের পানি প্রবাহ স্বাভাবিক হলে জলাবদ্ধতা দূর হবে। খালকে কেন্দ্র করে একটি সুন্দর পরিবেশ ফিরে আসবে। আমাদের ছেলে-মেয়েরা যাতে সুন্দর পরিবেশে বেড়ে উঠতে পারে, কর্তৃপক্ষে যাতে সেরকম পরিবেশের ব্যবস্থা করে দেয়, এটিই আমাদের দাবি।

স্থানীয়দের মতে, একসময় এই খালের প্রস্থ ছিল প্রায় ১০০ ফুটের মতো। মাঝে এটি পুরোপুরি ভরাট করে ট্রাকস্ট্যান্ড বানানো হয়। পরে ওয়াসা থেকে খালটির দায়িত্ব বুঝে পাওয়ার পর ডিএনসিসির মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম সেই স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করে নতুন করে খাল খননের কাজ শুরু করেন।

খালের শুরুর অংশে শিশুরা যেন খেলতে পারে, এমন একটি ছোট পার্ক নির্মাণের পরিকল্পনা করছে নগর কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে ডিএনসিসির এক কর্মকর্তা বলেন, খাল দখলমুক্ত করে যে জায়গা খালি করা হচ্ছে, পরবর্তী সময়ে ওই খালি জায়গায় এলাকাবাসীর জন্য একটি বিনোদন পার্ক স্থাপন করা হবে। এটা করা হবে যাতে নতুন করে কেউ আবার খাল দখলের সুযোগ না পায়।

এ বিষয়ে ডিএনসিসির তথ্য কর্মকর্তা মো. পিয়াল হাছান বলেন, এখনও সেরকম কোনো বড় পরিকল্পনা নেওয়া হয়নি। তবে দখলমুক্ত রাখতে শিশুদের খেলার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হতে পারে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর