রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন

ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির ষাণ্মাসিক মূল্যায়নে নির্দেশনা

রিপোর্টারের নাম / ৪৪ টাইম ভিউ
Update : বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই, ২০২৪

 

নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির ষাণ্মাসিক মূল্যায়ন শুরু হয়েছে বুধবার (৩ জুলাই)। প্রথম দিনের মূল্যায়নেই প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষার আগের রাতে ষাণ্মাসিক মূল্যায়নের প্রশ্ন ফেসবুক-ইউটিউবে সয়লাবে সমালোচনার ঝড় বইছে। তবে এসব নিয়ে এবার জরুরি বার্তা দিয়েছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)।-খবর তোলপাড় ।

বুধবার (৩ জুলাই) রাতে এনসিটিবির চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. মশিউজ্জামানের (রুটিন দায়িত্ব) সই করা বিজ্ঞপ্তিতে এ জরুরি নির্দেশনা দেয়া হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জাতীয় শিক্ষাক্রম-২০২২-এর আলোকে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির ২০২৪ সালের ষাণ্মাসিক সামষ্টিক মূল্যায়ন ৩ জুলাই থেকে দেশব্যাপী একসঙ্গে শুরু হয়েছে। এই ষাণ্মাসিক সামষ্টিক মূল্যায়নের ‘মূল্যায়ন নির্দেশনা’ প্রতিটি বিষয়ের মূল্যায়নের আগের দিনে নৈপুণ্য অ্যাপের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠান প্রধানের নিজস্ব আইডিতে পাঠানো হচ্ছে।

যদিও এই ‘মূল্যায়ন নির্দেশনাসমূহ’ কোনো শিক্ষার্থী আগে থেকে জেনে গেলেও সামগ্রিক মূল্যায়ন কার্যক্রমে কোনো ধরনের বিঘ্ন সৃষ্টি হবে না, তথাপিও পরীক্ষার হলে প্রবেশের আগেই এই ‘মূল্যায়ন নির্দেশনাসমূহ’ কতিপয় প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক বিভিন্ন মহলের সঙ্গে শেয়ার করায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে। যার ফলে, কতিপয় অসাধু ব্যক্তি এবং সংস্থা কর্তৃক এই ‘মূল্যায়ন নির্দেশনাসমূহের’ বিভিন্ন অসত্য, ভুল, অপ্রাসঙ্গিক এবং বিভ্রান্তিকর সমাধান ইউটিউব এবং অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশিত হচ্ছে। এই বিভ্রান্তিকর সমাধানসমূহ শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকগণকে ব্যাপকভাবে বিভ্রান্ত করছে এবং মূল্যায়ন কার্যক্রম বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা তৈরি করছে।

প্রতিষ্ঠান প্রধান/প্রধান শিক্ষকের নিজস্ব আইডিতে প্রেরণকৃত এই ‘মূল্যায়ন নির্দেশনাসমূহ’ বাইরের যে কারো সঙ্গে শেয়ার করা শিক্ষকতার নৈতিকতাবিরোধী কার্যক্রম এবং চরম অ-শিক্ষকসুলভ আচরণ। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, নৈপুণ্য অ্যাপের ইউজার আইডির মাধ্যমে এই ‘মূল্যায়ন নির্দেশনাসমূহের’ ডাউনলোড এবং বিস্তরণ কার্যক্রম ট্র্যাকিং করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা আছে। এই ট্র্যাকিংয়ের আলোকে কোনো প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক মূল্যায়ন নির্দেশনাসমূহ কোনো অপ্রাসঙ্গিক কমিউনিটি কিংবা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ারের বিষয় প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ অবস্থায় মূল্যায়ন কার্যক্রমের ‘মূল্যায়ন নির্দেশনাসমূহ’ বিস্তরণের মতো এ রকম স্পর্শকাতর একটি বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আরও দায়িত্বশীল হওয়া এবং সতর্কতা অবলম্বন করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর