1. admin@dailytolper.com : admin :
নোটিশ:
দৈনিক তোলপাড় পত্রিকা থেকে আপনাকে স্বাগতম। তোলপাড় পত্রিকা আপনার আমার সবার। আপনার এলাকার উন্নয়নের ভূমিকা হিসেবে পত্রিকাটির মাধ্যমে আমরা দায়িত্ব নিয়েছি।   এ জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলা-বিভাগ-কলেজ ক্যাম্পাসসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় সাংবাদিক নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পত্রিকাটির পর্ষদ।  আগ্রহী হলে আপনিও এক কপি রঙিন ছবিসহ নিম্ন ঠিকানায় সিভি প্রেরণ করে নিয়োমিত সংবাদ পাঠাতে পারেন।   প্রচারে প্রসার, আপনার প্রতিষ্ঠান সারা বিশ্বে প্রচারেরর জন্য বিনামূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।   বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য যোগাযোগ করুন-০১৭১৯০২৬৭০০, prohaladsaikot@gmail.com

৫শতাংশ প্রণোদনা পাচ্ছে না এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা

  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ২৭ জুন, ২০২৩
  • ১৪৯ টাইম ভিউ

Visits: 28

সরকারি কর্মচারীদের আগামী ১ জুলাই থেকে ৫ শতাংশ প্রণোদনা পাচ্ছেন। ওই সময়ে বার্ষিক ৫ শতাংশ বার্ষিক ইনক্রিমেন্টের সঙ্গে আরও ৫ শতাংশ প্রণোদনা যোগ হচ্ছে। অর্থাৎ তারা জুলাই মাসের বেতনের সঙ্গে মোট ১০ শতাংশ বাড়তি অর্থ পাবেন। কিন্তু এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা সরকার থেকে শতভাগ মূল বেতন পেলেও আপাতত তারা ৫ শতাংশ বাড়তি প্রণোদনা পাচ্ছেন না।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের যুগ্ম সচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক) সোনা মণি চাকমা গণমাধ্যমকে বলেন, সরকারি কর্মচারীদের মতো এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বাড়তি ৫ শতাংশ প্রণোদনা দেওয়ার ব্যাপারে এখনো আমরা অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে কোনো নির্দেশনা পাইনি। ফলে এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত আমরা তাদের প্রণোদনা দিচ্ছি না।-খবর তোলপাড় ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত রবিবার জাতীয় সংসদে ২০২৩-২৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর বক্তব্য দেওয়ার সময় সরকারি কর্মচারীদের জন্য ৫ শতাংশ নতুন করে প্রণোদনা দেওয়ার কথা জানান। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের পর সোমবার অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়, তারা এ বিষয়ে প্রাথমিক প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। এখন একটি সারসংক্ষেপ উপস্থাপন করা হবে অর্থমন্ত্রীর কাছে। এরপর তা অনুমোদনের জন্য যাবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। জুলাইয়ের মধ্যেই সব কাজ শেষ হবে। বাড়তি ৫ শতাংশের জন্য সরকারের অতিরিক্ত ব্যয় হবে তিন থেকে চার হাজার কোটি টাকা।

সূত্র জানায়, দেশে বর্তমানে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীর সংখ্যা প্রায় ৫ লাখ। তাদের বেতন-ভাতার পেছনে বছরে সরকারের ১৩ হাজার কোটি টাকার বেশি ব্যয় হয়। যদিও এই টাকায় সরকার শতভাগ মূল বেতন দেয়। আর প্রত্যেক শিক্ষককে বাড়ি ভাড়া বাবদ মাসে ১০০০ টাকা ও চিকিৎসা ভাতা বাবদ মাসে ৫০০ টাকা দেয়। শিক্ষকেরা উৎসব ভাতা পান মূল বেতনের ২৫ শতাংশ ও কর্মচারীরা উৎসব ভাতা পান মূল বেতনের ৫০ শতাংশ। এ ছাড়া তারা সরকারি কর্মচারীদের মতো বৈশাখী ভাতা পান। তবে যদি সরকারি কর্মচারীদের মতো ৫ শতাংশ প্রণোদনা দিতে হয় তাহলে সরকারকে বছরে আরও ৬০০ থেকে ৮০০ কোটি টাকা অতিরিক্ত ব্যয় করতে হবে।

এদিকে এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদেরকে বিশেষ আর্থিক প্রণোদনায় অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস)। সংগঠনটির এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা যায়, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা বর্তমান দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে এক রকম বিপর্যস্ত। সরকার ঘোষিত সরকারি চাকরিজীবীদের ৫ শতাংশ বিশেষ আর্থিক প্রণোদনায় এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি উল্লেখ না থাকায় এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীরা উদ্বিগ্ন। এতে সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিষয়টি স্পষ্ট করা হলেও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিষয়টি ঊহ্য রাখা হয়েছে । এতে শিক্ষক-কর্মচারীদের উদ্বিগ্নতা আরও বাড়ছে।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2017 তোলপাড়
Customized BY NewsTheme