1. admin@dailytolper.com : admin :
নোটিশ:
দৈনিক তোলপাড় পত্রিকা থেকে আপনাকে স্বাগতম। তোলপাড় পত্রিকা আপনার আমার সবার। আপনার এলাকার উন্নয়নের ভূমিকা হিসেবে পত্রিকাটির মাধ্যমে আমরা দায়িত্ব নিয়েছি।   এ জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলা-বিভাগ-কলেজ ক্যাম্পাসসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় সাংবাদিক নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পত্রিকাটির পর্ষদ।  আগ্রহী হলে আপনিও এক কপি রঙিন ছবিসহ নিম্ন ঠিকানায় সিভি প্রেরণ করে নিয়োমিত সংবাদ পাঠাতে পারেন।   প্রচারে প্রসার, আপনার প্রতিষ্ঠান সারা বিশ্বে প্রচারেরর জন্য বিনামূল্যে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।   বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য যোগাযোগ করুন-০১৭১৯০২৬৭০০, prohaladsaikot@gmail.com

৯৬ করতে গিয়ে ৮৭ রানে গুটিয়ে নিলো টাইগ্রেসরা

  • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ১১ জুলাই, ২০২৩
  • ৭১ টাইম ভিউ

Visits: 3

বোলারদের নৈপুণ্যে শক্তিশালী ভারতীয় দলের পুঁজিটা একশর আগেই থামিয়ে আশা জাগিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু আরও একবার ব্যর্থ ব্যাটাররা। অধিনায়ক নিগার সুলতানা জ্যোতি ছাড়া পারলেন না কেউ দায়িত্ব নিতে। ফলে আরও একটি হারে সিরিজ খোয়াল বাংলাদেশের মেয়েরা।

মঙ্গলবার(১১জুলাই) মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে বাংলাদেশকে ৮ রানে হারিয়েছে ভারত। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯৫ রান করে সফরকারীরা। জবাবে শেষ বল পর্যন্ত খেলে ৮৭ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ।-খবর তোলপাড় ।

সিরিজের প্রথম ম্যাচেও ব্যাটাররা ছিলেন ব্যর্থ। এদিন প্রতিপক্ষ একশর আগে আটকে রেখেও সুযোগ লুফে নিতে পারলো না মেয়েরা। বাংলাদেশ যতটুকু লড়েছে এক অধিনায়ক নিগারের কল্যাণে। কিন্তু তার বিদায়ের পর মাত্র ১ রান তুলতে শেষ পাঁচটি উইকেট উইকেট হারায় বাংলাদেশ।

লক্ষ্য তাড়ায় এদিন শুরুটা ভালো হয়নি বাংলাদেশের। দলীয় ১০ রানেই ভাঙে বাংলাদেশের ওপেনিং জুটি। দুই ওপেনার শামিমা সুলতানা ও সাথি রানী আউট হয়েছেন ব্যক্তিগত ৪ রানে। কনকাশন সাব হিসেবে নামা মুর্শিদা খাতুনও হতাশ করেন। ব্যক্তিগত ৪ রানে আউট হয়েছেন। তবে বল নষ্ট করেছেন ১৫টি। হতাশ করেন রিতু মনিও। ব্যক্তিগত ৪ রানে মানির বলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন।

তবে এক প্রান্ত আগলে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন নিগার। তাকে কিছুটা সঙ্গ দেন স্বর্ণা আক্তার। তার সঙ্গে ৩৪ রানের জুটি গড়েন অধিনায়ক। বোলার দিপ্তি শর্মার হাতে ক্যাচ দিয়ে স্বর্ণা সাজঘরে ফিরলে ভাঙে এ জুটি। এরপর নাহিদা আক্তারের সঙ্গেও ২২ রানের জুটি গড়েছিলেন নিগার। কিন্তু এরপর হঠাৎ করেই ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনআপ।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৮ রানের ইনিংস খেলেন নিগার। ৫৫ বলে ২টি চারের সাহায্যে এ রান করেন তিনি। এছাড়া আর কোনো ব্যাটার পারেননি দুই অঙ্ক স্পর্শ করতে। শেষ চারজনের কেউ খুলতে পারেননি রানের খাতা। ভারতের পক্ষে ১২ রানের খরচায় ৩টি উইকেট পান দিপ্তি। ১৫ রানের বিনিময়ে ৩টি উইকেট নেন শেফালি। ২টি শিকার মানির।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো ছিল ভারতের। ৩৩ রানের ওপেনিং জুটি গড়েন দুই ওপেনার শেফালি ভার্মা ও স্মৃতি বন্দনা। তখন বেশ সাবলীলভাবেই ব্যাটিং করছিলেন এ দুই ওপেনার। তবে এ জুটি ভেঙেই দারুণভাবে ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ।

প্রথম ধাক্কাটা দেন নাহিদা আক্তার। বোল্ড করে দেন স্মৃতিকে। পরের ওভারে আরেক ওপেনার শেফালিকে ফেরান সুলতানা। পরের বলে বড় ধাক্কাটা দেন এই অফস্পিনার। রানের খাতা খোলার আগেই বোল্ড করে দেন ভারতীয় অধিনায়ক হারমানপ্রিত কউরকে। তাতে সফরকারীদের চেপে ধরেন টাইগ্রেসরা।

সে চাপ আর উতরে উঠতে পারেনি ভারত। বাংলাদেশি বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারিয়েছে তারা। ফলে কোনো ব্যাটারই পারেননি দায়িত্ব নিতে। সপ্তম উইকেটে আমারজট কউরের সঙ্গে দিপ্তি শর্মার ২১ রানের জুটিতে মাঝারী পুঁজি মিলে সফরকারীদের।

ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ১৯ রানের ইনিংস খেলেন শেফালি। এছাড়া আমানজট করেন ১৪ রান। বাংলাদেশের পক্ষে ২১ রানের খরচায় ৪টি উইকেট নেন সুলতানা। ১৬ রানের বিনিময়ে ২টি উইকেট পান ফাহিমা খাতুন।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2017 তোলপাড়
Customized BY NewsTheme