বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ১১:৩৩ অপরাহ্ন

নোটিশ:
দৈনিক তোলপাড় পত্রিকা থেকে আপনাকে স্বাগতম। তোলপাড় পত্রিকা আপনার আমার সবার। আপনার এলাকার উন্নয়নের ভূমিকা হিসেবে পত্রিকাটির মাধ্যমে আমরা দায়িত্ব নিয়েছি।  এ জন্য বাংলাদেশের প্রতিটি জেলা-উপজেলা-বিভাগ-কলেজ ক্যাম্পাসসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় সাংবাদিক নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পত্রিকাটির পর্ষদ।  আগ্রহী হলে আপনিও এক কপি রঙিন ছবিসহ নিম্ন ঠিকানায় সিভি প্রেরণ করে নিয়োমিত সংবাদ পাঠাতে পারেন। সেই সাথে সারা বিশ্বে আপনার এলাকার প্রতিষ্ঠানের প্রচারেরর জন্য  ৫০% কমিশনে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।

ভেড়ামারায় বিকল্প পারাপারের ব্যবস্থা নেই নতুন নির্মাণাধীন ব্রিজে

সংবাদদাতা, ভেড়ামারা(কুষ্টিয়া):

প্রায় ৩ বছরের বেশি সময় অপেক্ষার পর কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা শহরের অন্যতম প্রবেশদ্বার জিকে ৩ নং ব্রিজ নতুনভাবে নির্মাণ কাজ বৃহস্পতিবার (২০শে জুলাই) সকাল থেকে শুরু হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতাধীন জিকে সেচ প্রকল্পের মুল ক্যানেলের উপর নির্মিত ব্রিজটি গত ৩ বছর পুর্বে যানবাহন চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়লে সড়ক কতৃপক্ষ ব্রিজটির পুর্বপাড়ের কিছু অংশ দ্বিতল আকারে ষ্ট্রিলের পাটাতন তৈরী করে ঝুকিপুর্ণ ভাবে আস্তে ধীরে জোড়াতালিভাবে যান চলাচলের ব্যবস্হা করে। যা মাঝে মাঝে বিকল হওয়া সহ দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি করতো। গনমাধ্যম কর্মীদের লেখালেখি, পৌর কতৃপক্ষের দৌড়াদৌড়ি, ফেসবুক ইউজারদের লেখালেখি, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও সড়ক কতৃপক্ষের টানাপোড়েন শেষে কোয়ার্টার যুগ পর তা টেন্ডারের মাধ্যমে পুনঃ মেরামত তথা নতুন করে তৈরী করার অনুমতিপ্রাপ্ত হয়। যার নির্মাণ কাজের নমুনা হিসেবে পুরোনো ব্রিজটি ভাঙার কাজ শুরু হয়।ব্রিজটি নির্মাণের কাজ জহুরুল লিমিটেড নামে একটি ঠিকাদকরি প্রতিষ্ঠান পেয়েছে বলে জানা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, ভৌগলিক দিক থেকে ব্রিজটি ভেড়ামারা শহরের প্রবেশ দ্বার হিসেবে খ্যাত। এ ব্রিজ দিয়ে বাহিরচর ইউনিয়নের পাম্প হাউজ, মোসলেমপুর, ১২ মাইল, দশ মাইল মুন্সিপাড়া সহ, পুর্ব নওদাপাড়া, চাঁদগ্রাম, চন্ডিপুর,বাড়াদী, খাড়ারা,কাচারী, নওদা খাদিমপুর, বহলবাড়ীয়ার জনসাধারণ অটো, ভ্যান, পায়ে হেঁটে পথযাত্রী পারাপার হয়ে থাকে। ব্রিজটির পুর্বপাশের নওদাপাড়ায় ভেড়ামারা ২৫ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খাদিজাতুল কোবরা মহিলা মাদ্রাসার ছাত্রছাত্রী সহ বিভিন্ন কেজি স্কুল, মাধ্যমিক স্কুল, কলেজ, মহিলা কলেজ, টেকনিক্যাল স্কুল, পড়ালেখার কারণে দৈনিক হাজারো পথযাত্রীর এপার ওপার করতে হয়। তাছাড়া বড়দের অফিস আদালত, কোর্ট কাচারি, ব্যাংক বীমা, উপজেলা শহরের বাজার, উপজেলার দপ্তরে যাতায়াতে এ ব্রিজটি ব্যবহার করতে হয়।নদী বা খালের উপর ব্রিজ নির্মাণে সর্বত্রই আমরা বিকল্প পারাপারের ব্যবস্হাকরে ব্রিজ নির্মাণ লক্ষ্য করে থাকি। কিন্তু এখানে বিপুল সংখ্যক জনগোষ্ঠীর পারাপারের ব্যবস্থা নিশ্চিত না করে ব্রিজ নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। যা প্রায় ১৮ মাস মতান্তরে তারও বেশি সময় লাগতে পারে বলে জানা যাই।

এ ব্যাপারে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করে জানা যায়, জিকে ক্যানেল দক্ষিণাঞ্চলের ব্যাপক কৃষি ফসল আবাদে সেচের পানি সরবরাহের নিমিত্তে ক্যানেল বেঁধে মাঝখানে পাইপ দিয়ে পানি চলাচলে রাজি হয় নি। সে কারণে বিকল্প পারাপার ব্যবস্হা করা সম্ভব হচ্ছে না।

ব্রিজটি নির্মাণ কালে জনগণের চলাচলে দীর্ঘদিনের সমস্যা হবে বিধায় ব্রিজ দিয়ে নিত্যদিন পারাপারে অভ্যস্ত এলাকাবাসি বিকল্প পারাপারের ব্যবস্হা রাখার জোর দাবি জানিয়েছে। তবে শত প্রতিবন্ধকতা, দীর্ঘ অপেক্ষা সত্বেও দীর্ঘদিনের ঝুঁকিপুর্ণ ব্রিজ নির্মাণ, যানজট নিরশন কল্পে কতৃপক্ষের ব্রিজ নির্মাণকে অনেকেই কার্যকরী ও যুগান্তকারী পদক্ষেপ বলে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

আপনার সামাজিক মিডিয়া এই পোস্ট শেয়ার করুন

দৈনিক তোলপাড় এর পক্ষ থেকে সকল পাঠক লেখক সাংবাদিক ও শুভানুধায়ীকে প্রাণঢালা অভিনন্দন। আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে, পত্রিকাটি বাংলাদেশের প্রতিটি বিভাগ জেলা উপজেলা থানা কলেজ ক্যাম্পাস-এ এক ঝাঁক তরুন-তরুনী সাংবাদিক নিয়োগ করতে যাচ্ছে ।

আগ্রহীরা দ্রুত এক কপি ছবিসহ প্রধান সম্পাদক বরাবর আবেদন করুন.. আবেদন পাঠানোর ঠিকানা-dailytolpercv@gmail.com

এছাড়া বিশেষ ৫০% ছাড়ে সারাবিশ্বে প্রচারের জন্য আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে পারেন। বিজ্ঞাপন পাঠানোর ঠিকানা-dailytolpernews@gmail.com যোগাযোগ করুন-+88 01915394614, +8801719026700


© All rights reserved © 2017 তোলপাড়