কুড়িগ্রামে বিলের মাঝে বাঁধ দিয়ে পুকুর খনন, জলাবদ্ধতায় পানির নিচে ৩শ বিঘা জমি – সারাক্ষণ সংবাদ
ঢাকাWednesday , 16 August 2023
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. এক্সক্লোসিভ
  6. কবিতা-সাহিত্য
  7. কুড়িগ্রাম
  8. কুমিল্লা
  9. খুলনা
  10. খেলাধুলা
  11. গণমাধ্যম
  12. চট্টগ্রাম
  13. চাকরি বার্তা
  14. জাতীয়
  15. ঢাকা

কুড়িগ্রামে বিলের মাঝে বাঁধ দিয়ে পুকুর খনন, জলাবদ্ধতায় পানির নিচে ৩শ বিঘা জমি

admin
August 16, 2023 5:48 pm
Link Copied!

Visits: 22

সংবাদদাতা,কুড়িগ্রাম:

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীর জয়মনির হাট ইউনিয়নের ভেরভেরি বিল ও বাউসমারী বিলের মাঝখানে বাঁধ দিয়ে পুকুর তৈরী করায় প্রায় দেড় শতাধিক ব্যক্তির ৩০০ বিঘা জমি জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে চলতি আমন মৌসুমের শেষ পর্যায়েও ধানের চারা লাগাতে না পারায় বিপাকে পড়েছেন তারা। এসকল জমি মালিকগণ বিচারের আশায় প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে। কিন্তু সমাধান মিলছেনা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, জয়মনিরহাট ইউনিয়নে অবস্থিত ভেরভেরি বিলের পানি পার্শ্ববর্তী বাউশমারী বিলে দিয়ে বকনী নদীতে গিয়ে পড়ে। সম্প্রতি ওই এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা হবিবর রহমান ও তার ছোট ভাই শাহাদত হোসেন মাস্টার ভেরভেরি বিল ও বাউসমারী বিলের মাঝখানে বাঁধ তৈরী করে মাছ চাষ শুরু করে। এরফলে দীর্ঘদিন থেকে ভেরভেরি বিলের পানি প্রবাহের রাস্তা বন্ধ হওয়ায় বাঁধের উজানে প্রায় ৩ শত বিঘা জমি তলিয়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়। এর ফলে ওই জমি মালিকগণ আমন ধানের চারা লাগাতে না পারায় বিপাকে পড়ে।

ভূমি মালিক রইচ উদ্দিন, আব্দুল মজিদ,শরিফুল আলম ও যোবায়ের হোসেন জানান, জমি গুলো তলিয়ে যাওয়ায় এখন পর্যন্ত রোপা চারা লাগাতে পারি নাই। ধানের আবাদ না হলে না খেয়ে মরতে হবে।

মালেকা বেগম নামের এক নারী বলেন, বাঁধ দেয়ায় দুই বিঘা জমি পানির নিচে এখনো এক গোছা ধান লাগাতে পারি নাই। ধান না লাগালে পেটে পাথর বান্দি থাকা লাগবে।

স্থানীয়রা জানান, এলাকাবাসীর পক্ষে ৪৪ জন ব্যক্তি স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ,কৃষি অফিসার ও থানার ওসির নিকট দিলেও এখন পর্যন্ত বিষয়টির সমাধান না হওয়ায় আমরা ধান চারা লাগানো নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছি।

এব্যাপারে বীর মুক্তিযোদ্ধা হবিবর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি ধান ও মাছ চাষের জন্য বাঁধ দিয়েছি। তারপরও ইউপি চেয়ারম্যানের পরামর্শে পানি নিস্কাশনের জন্য পুকুরের পারের নিচ দিয়ে পাইপ বসাতে সম্মত হয়েছি। কিন্তু পরে তারা যোগাযোগ করেনি।

জয়মনিরহাট ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াদূদ জানান, বাঁধ নির্মাণের সময় আমি সরেজমিনে গিয়েছিলাম। তখন তারা পাইপ বসানোর জায়গা রেখে বাঁধ নির্মার্ণের কথা দিয়েছিলো। কিন্তু পরবর্তীতে কথা রাখছেনা। তিনি জানান, এই বাঁধের ফলে শতশত বিঘা জমি জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) শাহ মোঃ আপেল মাহমুদ জানান, এব্যাপারে উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তাসহ আমরা উভয় পক্ষকে ডেকে মিমাংসার চেষ্টা করেছি কিন্তু সমাধান করা সম্ভব হয়নি। এবিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করা হয়েছে।

ভূরুঙ্গামারী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুহুল আমিন জানান, অভিযোগ পাবার পর আমরা জিডি করে ঘটনাস্থলে তিন দফা পুলিশ পাঠিয়ে মিমাংসার চেষ্টা করেছি এবং এখনো চেষ্টা চালাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) দীপক কুমার দেব শর্মা জানান, অভিযোগ পাবার পর এটি সামাধানের জন্য উপজেলা কৃষি অফিসারকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।