বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৬:২১ অপরাহ্ন

ফুলবাড়ীতে যাওয়া আসা রাস্তা বন্ধ করেছে প্রতিপক্ষ, চরম নিরাপত্তায় রাজকুমার

রিপোর্টারের নাম / ১৬ টাইম ভিউ
Update : বুধবার, ৮ মে, ২০২৪

এমদাদুল হক মিলন,ফু্লবাড়ী (কুড়িগ্রাম):

কুড়িগ্রামের ফু্লবাড়ী উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের পূর্বকাশিপুর গ্রামের রাজকুমার রবিদাসের বাড়ী-যাওয়া আসার রাস্তায় বন্ধ করেছে প্রতিপক্ষ আলতাফ হোসেন। এ ঘটনায় ওই পরিবারটি ফু্লবাড়ী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করলেও চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুকছেন। রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় মানুষের ফসলি জমির আইল দিয়ে যাতায়াত করছে।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, রাজকুমার রবিদাসের বাড়ী আসা যাওয়ার রাস্তার জমিটুকুও তার বাবা নামে।
তারপরেও প্রতিপক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় অনেকদিন থেকে কারণে অকারনে রাজকুমার রবিদাসের সাথে প্রায় সময় বিবাদ সৃষ্টি করেন প্রতিবেশী আলতাফ হোসেন ও তার বাবা।

গত ২ মে সকালে কোন কারণ ছাড়াই রাজকুমার রবিদাসের যাওয়া-আসার রাস্তায় বাঁশ ও কাঠের বেড়া দিয়েছে প্রতিবেশী আলতাফ হোসেন ও তার বাবা মোজাফ্ফর হোসেন। এ ঘটনায় ওই অসহায় পরিবারটি গত ২ মে ফুলবাড়ী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছে। অভিযোগ করার পরে সেইদিন সারাদিন ওই পরিবারটি মানুষের ফসলি জমির আইল দিয়ে যাতায়াত করে।

হঠাৎ রাত ১২ টার দিকে প্রতিপক্ষ আলতাফ হোসেন রাস্তার বেড়া খুলে দেন। এরপর থেকে রবিবাস পরিবারসহ রাস্তায় চলাচল করে আসছে। ৮ মে বুধবার দুপুরে আবারও কোন কারণ ছাড়াই আলতাফ হোসেন বাঁশ ও কাঠের বেড়া দিয়ে রাজকুমার রবিদাসের যাওয়া-আসার রাস্তা বন্ধ করে দেন এবং ওই অসহায় পরিবারটিকে হুমকি-দামকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

বর্তমানে ওই পরিবারটির সকল সদস্যদের বাড়ী ঢোকার রাস্তা বন্ধ হওয়াসহ চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুকছেন।

রাজকুমার রবিদাস জানান আমি পরিবার-পরিজন নিয়ে বড় বিপদে আছে। আমার এই বিপদ উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।

এ ব্যাপারে আলতাফ হোসেনের মোবাইলে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি।

এ প্রসঙ্গে ফু্লবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ জানান, অভিযোগ পেয়ে পুলিশ গত ২ মে রাতে বন্ধ রাস্তা খুলে দেয়া হয়েছে। বুধবার আবারও সেই যাওয়া আসা রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে এমন প্রশ্ন করলে তিনি জানান, আমি দ্রুত বন্ধ রাস্তা খুলে দেয়ার জন্য ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর