সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০৩:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
‘বাবাকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে হত্যা করেছি’ বিলের পানিতে ভাসছে কাউন্সিলরের মরদেহ ইজিবাইক চালককে হত্যার দায়ে যুবকের মৃত্যুদণ্ড রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি জমা দিল কোটা আন্দোলনকারীরা একইদিনে বাংলাদেশে মুক্তি ‘পদাতিক’ ট্রাম্পের হামলাকারী কে এই যুবক? প্রধানমন্ত্রীর প্রশ্ন, মুক্তিযোদ্ধার নাতি-নাতনিরা পাবে না তো রাজাকারের নাতিরা পাবে? কারাগার ভেঙে পালানোর চেষ্টাকালে বন্দুকযুদ্ধ ,নিহত ৮ জঙ্গিবাদ থামিয়েছি, এখন দুর্নীতিবাজদের ধরছি জানিয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী দেশের যেকোন দুর্যোগ মূহুর্তে র‌্যাব সবসময় বন্ধু হয়ে জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে কুড়িগ্রামে জানিয়েছে র‌্যাব মহাপরিচালক

সালমানকে মারতে ২৫ লাখে চুক্তি!

রিপোর্টারের নাম / ৪৮ টাইম ভিউ
Update : মঙ্গলবার, ২ জুলাই, ২০২৪

গত এপ্রিল মাসে সালমান খানের বাড়িতে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়ে পালিয়ে যান দুই ব্যক্তি। পরে জানা যায় এ কাজ গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোইয়ের। ভাইজানকে হত্যা করাই তার লক্ষ্য। জানা গেল সালমানকে হত্যা করতে ২৫ লাখ রুপি চুক্তি করেছিলেন এ গ্যাংস্টার। এ ঘটনার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সাফল্য পায় ভারতীয় পুলিশ। গ্রেফতার করে গুলি ছোড়া ওই দুজনকে। পরে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত আরও দুই জন ধরা পড়ে। এবার গ্রেফতারকৃতদের তালিকায় যোগ হলো আরও একজন।-খবর তোলপাড় ।

হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সালমানের বাড়ির সামনে গুলি করে দুই ব্যক্তি ধরা পড়ে। পরে মামলায় পাঁচ জনকে অভিযুক্ত করে একটি নতুন চার্জশিট পেশ করেছে মুম্বাই পুলিশ। এই পাঁচ জন সালমানকে হত্যার পরিকল্পনা করেছিলেন। সেখান থেকেই প্রকাশ্যে এলো আরও নানা তথ্য।

মুম্বাই পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তরা বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সঙ্গে যুক্ত। তাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও অন্যান্য অপরাধের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। চার্জশিটে জানানো হয়েছে ভাইজানকে হত্যা করতে অভিযুক্তদের বিষ্ণোই গ্যাংয়ের পক্ষ থেকে ২৫ লাখ রুপির কন্ট্রাক্ট দেয়া হয়েছিল। বলিউডের এ সুপারস্টারকে হত্যার পরিকল্পনা আঁকা হয় ২০২৩ সালের অগস্ট থেকে ২০২৪ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত।

এছাড়া এই চার্জশিটে জানানো হয়েছে, সালমানকে ঘিরে এবার করা হয়েছিল বড় ধরনের ষড়যন্ত্র। তার গতিবিধির ওপর নজর রাখতে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল ৬০-৭০ জন লোক। সালমান যেখানে যেতেন সেখানেই তাকে অনুসরণ করত তারা। এ তারকাকে হত্যা করতে যাদের নিযুক্ত করা হয়েছিল তাদের বয়স ১৮ বছরের নিচে। যারা অপেক্ষায় ছিল গুলি চালানোর হুকুম আসার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর

এক ক্লিকে বিভাগের খবর